যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে চরম প্রতিশোধের হুঁশিয়ারি খামেনির

মার্কিন হামলায় নিহত হয়েছেন ইরানের এলিট ফোর্স-রেভ্যুলেশনারি গার্ড প্রধান জেনারেল কাসেম সুলেমানী ও ইরাকের মিলিশিয়া বাহিনীর শীর্ষ কমান্ডার আবু মাহদি আল-মুহান্দিস। চরম প্রতিশোধের হুশিয়ারি দিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি। ইরাকের বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ৪৮ ঘন্টার ভেতরই এ হামলা হলো। বাগদাদ বিমানবন্দরের বাইরে দু’টি গাড়ি লক্ষ্য করে রকেট হামলার পর কাসেম সুলেমানী নিহতের খবর আসে। এতে তাঁর উপদেষ্টা ইরাকের মিলিশিয়া নেতা আল-মুহান্দিসও নিহত হন।

১৯৯৮ সালে রেভ্যুলেশনারী গার্ড আল-কুদসের দায়িত্ব নেন চৌকষ সেনা কর্মকর্তা কাসেম সুলেমানী। মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ-পেন্টাগনের বিবৃতিতে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে হামলা হয়েছে। মার্কিন নাগরিকদের অবিলম্বে ইরাক ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগ। তীব্র নিন্দা জানিয়ে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ ট্যুইটে জানান, আইএস, আল-কায়েদার মতো জঙ্গি গোষ্ঠী নির্মূলে ইরানের সফলতায় ক্ষুব্ধ যুক্তরাষ্ট্র এই বোকামী করেছে। এই হত্যাকাণ্ডে নিন্দায় মার্কিনীদের বিশ্বের সবচে’ বর্বর জাতি বলেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আলী খামেনি। চরম প্রতিশোধের হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন তিনি।

You may also like

ওয়াশিংটনসহ ২৫টি শহরে কারফিউ

কারফিউ জারি আর ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের মোতায়নের পর