সোলাইমানির জানাজায় পদদলিত হয়ে নিহত ৪০

মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত ইরানের সামরিক কমান্ডার কাসেম সোলেইমানির দাফনের আনুষ্ঠানিকতায় যোগ দিতে গিয়ে পদদলিত হয়ে নিহত হয়েছে অন্তত ৪০ জন। আহত হয়েছে আরো কমপক্ষে দুইশো মানুষ। এদিকে, ইরাক থেকে এখনই মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হবে না বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার। মঙ্গলবার দাফনের জন্যে কাসেম সোলেইমানির মরদেহ তার নিজ শহর কেরমানে নিয়ে যাওয়া হয়। আগ থেকেই সেখানে জড়ো ছিলো লাখো শোকার্ত জনতা। সোলাইমানির মরদেহ নেয়ার পর একটি সরু জায়গা দিয়ে বিপুল সংখ্যক মানুষ একযোগে কবরের দিকে যাওয়ার সময় পদদলিত হওয়ার এই ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় মৃতের সংখ্যা আরো বাড়ার আশংকা করা হচ্ছে। দুর্ঘটনার পর স্থগিত করা হয়েছে সোলেইমানির দাফন প্রক্রিয়া।

তবে কবে দাফন সম্পন্ন করা হবে সে ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত জানায়নি ইরানি কর্তৃপক্ষ। এদিকে, সোলেইমানিকে হত্যার জন্যে যুক্তরাষ্ট্রকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে উল্লেখ করেছেন ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী। আর মার্কিন সেনাদের সন্ত্রাসী হিসেবে চিহ্নিত করে সর্বসম্মতভাবে প্রস্তাব পাস করেছে ইরানের পার্লামেন্ট। এরআগে, মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পক্ষে প্রস্তাব পাস করে ইরাকি পার্লামেন্ট। তবে এখনই মার্কিন সেনা ফিরিয়ে নেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার। সেইসাথে, সেনা প্রত্যাহারের পরামর্শ দিয়ে ইরাকে নিযুক্ত মার্কিন জেনারেলের লেখা চিঠির বিষয়টিও অস্বীকার করেছেন তিনি।

You may also like

ওয়াশিংটনসহ ২৫টি শহরে কারফিউ

কারফিউ জারি আর ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের মোতায়নের পর