১১ হাজার চারশ’ ছাড়িয়েছে করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা

করোনা ভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে দুই ও ইতালিতে এক বাংলাদেশিসহ ১১ হাজার চারশ’ ছাড়িয়েছে মৃতের সংখ্যা। আক্রান্ত দুই কোটি ৭৭ হাজারের কাছাকাছি। মৃতদের বেশিরভাগই বয়স্ক হলেও কম বয়সীরা শঙ্কামুক্ত নয় বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। স্থানীয় সময় শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রে আরো ১৯ জন মারা যাওয়ায় সেখানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দুইশ’ ৭৫ জনে পৌছেছে। সাড়ে ১৯ হাজার ছাড়িয়েছে আক্রান্তের সংখ্যা।

পরিস্থিতি গুরুতর আকার নেয়ায় করোনার বিস্তার প্রতিরোধে ক্যালিফোর্নিয়ার পর লকডাউন বা অবরুদ্ধ করা হয়েছে নিউ ইয়র্ক ও ইলিনয় রাজ্যকে। একে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতির সাথে তুলনা করে বিভিন্ন বিভাগকে সমন্বিত পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। করোনায় ভয়াবহ দুর্যোগের মুখে থাকা ইতালিতে মৃতের সংখ্যা চার হাজার পার হয় শুক্রবার। আক্রান্ত সাতচল্লিশ হাজারের বেশি।

ইউরোপে ইতালির পরই গুরুতর অবস্থা স্পেনে। সেখানে মৃতের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে। ইরানে মারা গেছে দেড় হাজারের কাছাকাছি। মার্কিন অবরোধে করোনা মোকাবেলার কর্মসূচি বাধাগ্রস্তের অভিযোগ তুলেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। যুক্তরাজ্যে করোনার বিস্তার প্রতিরোধে রেস্ট্যুরেন্ট, ক্যাফে ও পানশালাগুলো বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এই দুর্যোগের কারণে বেকারদের আয়ের ৮০ শতাংশ ভাতা সরকারের তরফ থেকে দেয়ার ঘোষণাও এসেছে। এদিকে, তরুণ ও যুবকরাও করোনার ঝুঁকিতে রয়েছে বলেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। ভিডিও কনফারেন্সে সংস্থার প্রধান তেদ্রোস আধনোম গিব্রাসুস জানিয়েছেন, করোনায় কেবল বৃদ্ধরাই মারা যাবেন আর অপেক্ষাকৃত কম বয়সীরা বেঁচে যাবে এমন ধারণা ভুল।

You may also like

ওয়াশিংটনসহ ২৫টি শহরে কারফিউ

কারফিউ জারি আর ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের মোতায়নের পর