রোহিঙ্গা নির্যাতনের আরো তথ্যবহুল প্রতিবেদন প্রকাশ

রোহিঙ্গাদের বাস্তুচ্যুত করতে মিয়ানমারে রাষ্ট্রীয় মদদে হত্যা ও বর্বর নির্যাতনের আরো তথ্যবহুল প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। বাংলাদেশ সীমান্তে ল্যান্ডমাইন স্থাপনের অভিযোগ মিয়ানমার অস্বীকার করলেও এর সত্যতা পেয়েছে সংস্থাটি। রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বরতার শিকার একাধিক ব্যক্তির সাক্ষাৎকার, ছবি, ভিডিও এবং স্যাটেলাইট চিত্রের ভিত্তিতে নয়া প্রতিবেদন প্রকাশ করে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা-অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। স্যাটেলাইটের ছবি বিশ্লেষন করে দেখানো হয়, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে রাখাইনে রোহিঙ্গা বসতির অন্তত একশ’ ২০টি স্থাপনা জ্বালিয়ে মাটির সাথে মিশিয়ে দেয়া হয়েছে। গোলাবর্ষণ ও গুলিতে নিহতদের স্বজনদের বর্ণনায় উঠে আসা বর্বরতার বিষয়গুলো নয়া প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়।

জানানো হয়, সেনা অভিযানের অজুহাত হিসেবে বিচ্ছিন্নতাবাদী আরাকান আর্মির অপতৎপরতার কথা বলা হলেও এর কোন আলামত মেলেনি। বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায় ল্যান্ডমাইন বিস্ফোরণে বেসামরিক মানুষ হতাহতের ঘটনায়ও উদ্বেগ জানিয়েছে সংস্থাটি। জানানো হয়, এমএম-টু ল্যান্ডমাইনগুলো মিয়ানমার সেনাবাহিনী ব্যবহার করে থাকে। যুদ্ধাপরাধের বিচারের জন্য পরিচিত-আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের কাছে নথিগুলো হস্তান্তরে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে উদ্যোগী ভূমিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

You may also like

মহানবী (সা.) কে অবমাননা: মুসলিম বিশ্বে ফরাসি পণ্য বয়কট শুরু

মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা:)-কে অবমাননার অভিযোগে মুসলিম বিশ্বে