হলি আর্টিজান মামলা: আটজনকে আসামি করে চার্জশিট দাখিল

দুই বছর তদন্ত শেষে দেয়া হলো গুলশানের হলি আর্টিজান হামলা মামলার অভিযোগপত্র। ছয়জন গ্রেফতার ও দুইজনকে পলাতক দেখিয়ে মোট আটজনকে আসামী করে দেয়া হয় এ অভিযোগপত্র। তদন্তে ২১ জনের সরাসরি সম্পৃক্ততা পায় পুলিশ। তবে, বিভিন্ন সময়ের আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর অভিযানে নিহত হয় ১৩ জন। এদিকে, অভিযোগপত্রের গ্রহণযোগ্যতার শুনানি হবে ২৬ জুলাই।

২০১৬ সালের ১ জুলাই। বাংলাদেশের ইতিহাসের নির্মম একটি দিন। গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেস্টে হামলায় স্থব্ধ হয় পুরো দেশ। জঙ্গিদের নিমর্মতায় নিহত হয় ১৭ বিদেশিসহ ২০জন। নিহত হয় দুই পুলিশ সদস্য। পরে, অপারেশন থান্ডারবোল্টে নিহত হয় পাঁচ জঙ্গি ও সন্দেহভাজন একজন। জিম্মিদশা থেকে উদ্ধার করা হয় ১৫ জন।

ঘটনার দু’বছর ২৩ দিন পর তদন্ত শেষে আটজনকে আসামী করে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। রাজীব গান্ধী, মিজানুর রহমান, রাকিবুল হাসান রিগ্যান, সোহেল মাহফুজ, হাদিসুর রহমান সাগর, রাশেদ ইসলামকে গ্রেফতার আর শরিফুল ইসলাম ও মামুনুর রশীদকে পলাতক দেখিয়ে দেয়া হয় অভিযোগ পত্র।

সম্পৃক্ততা থাকলেও বিভিন্ন সময়ে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর অভিযানে নিহত হয় তামিম, মারজান, সারোয়ার, তারেক, তানবীরসহ আট জঙ্গী আর অপারেশন থান্ডারবোল্টে নিহত হয় পাঁচ জঙ্গীকে চার্জশীট থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ ।

ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট প্রধান মনিরুল ইসলাম জানান, দেশকে অস্থিতিশীল করতেই গুলশানের হলি আর্টিজানে হামলা চালিয়েছিল জঙ্গীরা। জঙ্গী বিরোধী অভিযানগুলোতে নব্য জেএমবির প্রথম সারির নেতারা নিহত হওয়ায় গুলশান হামলায় বিদেশী কোন জঙ্গির সংম্পৃক্ততা ছিল কিনা তা জানা যায়নি বলে মন্তব্য করেন মনিরুল ইসলাম।

অভিযোগপত্রে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক হাসনাত করিমের নাম না থাকার বিষয়েও কথা বলেন মনিরুল ইসলাম। উদ্ধার হওয়া ১৭ জনসহ ২১১ জনের স্বাক্ষ্য নেয়া হয়।৭৫টি আলামত জব্দ করে আদালতে পাঠায় পুলিশ।

 

You may also like

মোংলা-বুড়িমারীতে ২২ কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্য: টিআইবি

২০১৬-১৭ অর্থবছরে মোংলাবন্দর ও কাস্টম হাউজ এবং বুড়িমারী