নুসরাতের খুনীদের আইন সহায়তা দেবেন না ফেনীর আইনজীবীরা

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়ায় জড়িত সন্দেহে দুই ছাত্রী জান্নাতুল আফরোজা মনি ও কামরুন্নাহার মনিকে আটক করেছে পিবিআই। এদিকে, অপর সন্দেহভাজন আসামী মো: শামীমের সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানোর কথা জানিয়েছে তদন্তকারী সংস্থা। অন্যদিকে, আজও নুসরাত হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে ফেনীসহ উত্তাল ছিল দেশের বিভিন্ন এলাকা।

নুসরাতকে পুড়িয়ে মারার পর ছয়দিন পেরিয়ে গেছে, তাকে হারানোর হাহাকার আর ক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে গেছে দেশজুড়ে। যৌন নিপীড়ক সিরাজউদ্দৌলা এবং তার সহযোগীদের বিচার দাবিতে ফেনীর নুসরাত জাহান রাফি এখন দেশের নানান প্রান্তে। খুনীদের শাস্তির দাবিতে আজো দেশের বিভিন্ন জায়গায় মানববন্ধন হয়েছে। ফেনীতে বিভিন্ন সংগঠন নুসরাত হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও মানববন্ধন করে। কুমিল্লার ইলিয়টগঞ্জ, পটুয়াখালী প্রেসক্লাব চত্বরে এবং বাগেরহাটেও মানববন্ধন হয় নুসরাত হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে।

এদিকে, নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়ায় জড়িত সন্দেহে তারই দুই সহপাঠী ও ও একই মাদ্রাসার আলীম পরীক্ষার্থী, জান্নাতুল আফরোজা মনি ও কামরুন্নাহার মনিকে আটক করেছে পিবিআই। মঙ্গলবার সোনাগাজীর আলাদা জায়গা থেকে তাদের আটক করা হয়। ফেনী পিবিআই’র অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান এই তথ্য নিশ্চিত করে মুঠোফোনে জানান, রাফির গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়া সেই নারী সন্দেহে ওই ছাত্রীদের আটক করা হয়।

এদিকে, নুসরাত হত্যা মামলার অন্যতম প্রধান আসামি নূরউদ্দিন রবিবার রাতে আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দিতে জানায়, পরিকল্পনা অনুযায়ী উম্মে সুলতানা পপি গিয়ে নুসরাতকে ভবনের ছাদে ডেকে নেয়। ওই সময় ছাদে কামরুন নাহার মণি ছিল। অপর সন্দেহভাজন আসামি মো: শামীমের সাত দিনের রিমান্ড আবেদন চাওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, নুসরাত হত্যা মামলার আসামীদেরকে কোন ধরণের আইন সহায়তা দেবেন না বলে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফেনী আদালতের আইনজীবীরা। নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার মূলহোতাসহ জড়িত সব হত্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেখতে চান সচেতন মহল।

 

You may also like

বিএসটিআই অনুমোদিত ১১ কোম্পানির পাস্তুরিত দুধে সীসা

এবার ১১টি কোম্পানির পাস্তুরিত দুধে মানবস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক