সাহেদকে হেলিকপ্টারে আনা হয়েছে ঢাকায়

করোনা রিপোর্ট জালিয়াতির মামলায় গ্রেফতার রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ডিবি’র কাছে হস্তান্তর করেছে Rab। বুধবার ভোর পাঁচটায় সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার শাখরা কোমরপুর সীমান্ত এলাকা থেকে অবৈধ অস্ত্রসহ তাকে গ্রেপ্তার করে rab. পরে তাকে হেলিকপ্টারে ঢাকায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। rab মহাপরিচালক চৌধুরি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে ছবি তুলে সাহেদ মানুষকে বিভ্রান্ত করতো।

করোনা টেস্টের রিপোর্ট জালিয়াতির অভিযোগে ছয় জুলাই রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায় rab. এরপর থেকেই পলাতক ছিলোন হাসপাতালটির চেয়ারম্যান মো. শাহেদ করিম। নয়দিন পর বুধবার ভোর পাঁচটায় সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটা উপজেলার শাখরা কোমরপুর সীমান্ত থেকে তাকে গ্রেফতার করে rab. উদ্ধার করা হয় গুলিভর্তি অবৈধ অস্ত্র। গ্রেপ্তারের পর শাহেদকে হেলিকপ্টারে রাজধানীতে আনা হয়। গোয়েন্দারা জানান, বোরকা পরে শাহেদ নৌকায় পাড়ি দিতে চেয়েছিলো সীমান্ত।

সাহেদকে নেয়া হয় rab সদরদপ্তর উত্তরায়। ঘন্টা দুয়েক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শাহেদকে নিয়ে অভিযানে বের হয় rab. উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টরের ৬২নম্বর বাড়িতে সন্ধান পায় সাহেদের আরো একটি অফিসের। যেখান থেকে দেড় লাখ টাকার জালনোট জব্দ করা হয়। উত্তারার সদরদপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে rab মহাপরিচালক বলেন, নয় দিন আত্মোগপনে শাহেদ দেশের বিভিন্ন জায়গায় লুকিয়ে ছিলেন। অত্যন্ত ধুরন্ধর সাহেদ মানুষকে ফাঁদে ফেলে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার তথ্যও পেয়েছেন তারা। মো. সাহেদ করিমের বিরুদ্ধে সারাদেশে জালিয়াতি ও প্রতারনাসহ অন্তত ৬০টি মামলার সন্ধান পেয়েছে rab. পরে মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা ডিবি’র কাছে সাহেদকে হস্তান্তর করাহয়।

 

You may also like

স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থী সিফাতের জামিন

পুলিশের মামলায় জামিন পেয়েছেন স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থী সাহেদুল ইসলাম