শাহেদ ১০ দিনের রিমান্ডে

করোনা রিপোর্ট জালিয়াতির মামলায় গ্রেফতার রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ করিমের দশ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। পাশাপাশি রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মাসুদ পারভেজকে দশ দিন ও সাহেদের সহযোগি তারেক শিবলীকে সাত দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। সাহেদ প্রতারনার কথা স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত কমিশনার আব্দুল বাতেন।

বৃহস্পতিবার সকাল দশটার দিকে রাজধানীর মিন্টুরোডের ডিবি কার্যালয় থেকে সাদা মাইক্রোবাসে মো: শাহেদ করিমকে নেয়া হয় পুরান ঢাকার সিএমএম আদালতে। সাহেদের সাথে তার প্রতিষ্ঠানের এমডি মাসুদ পারভেজ ও ব্যক্তিগত সহকারি তারেক শিবলীকেও আদালতে হাজির করা হয়।

তিন জনের বিরুদ্ধেই উত্তরা পশ্চিম থানায় দায়ের করা করোনা রিপোর্ট জালিয়াতির মামলায় দশ দিনের রিমান্ড চায় গোয়েন্দা পুলিশ। উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শুনে মোহাম্মদ সাহেদ ও মাসুদ পারভেজের দশ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন মহানগর হাকিম মো. জসিম। আর তারেক শিবলীর দ্বিতীয় দফায় সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বলেন, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কাজ করেছেন সাহেদ। মো. সাহেদের আইনজীবি রিমান্ডের বিরোধীতা করেন।

আদালতে থেকে মো. সাহেদকে নেয়া হয় মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে। অন্য দুই আসামি মাসুদ পারভেজ ও তারেক শিবলীকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়া হয় ডিবিতে। বুধবার ভোরে সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় মো. শাহেদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব । তার বিরুদ্ধে সারা দেশে প্রতারনাসহ নানা অভিযোগে অন্তত ৬০ টি মামলা রয়েছে।

জিয়া খান, বাংলাভিশন, ঢাকা।

You may also like

সিলেটে গণধর্ষণের আসামি মাহফুজ গ্রেফতার

সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলায় মাবুবুর