ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক স্কুল শিক্ষককে মারধরের পর নগ্ন করে শহরের রাস্তায় হাঁটানো হলো

ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক স্কুল শিক্ষককে মারধরের পর নগ্ন করে শহরের রাস্তায় হাঁটানো হলো। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের পশ্চিম গোদাবরী জেলার এলুরু শহরে।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নাম রামবাবু। এলুরু শহরেরই একটি স্কুলে ইংরেজির শিক্ষক তিনি। অভিযোগ, গত দু’বছর ধরে এক ছাত্রীকে লাগাতার ধর্ষণ করেছেন তিনি। সম্প্রতি ছাত্রীটি গর্ভবতী হয়ে পড়ে। অভিযোগ, বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য ছাত্রীটিকে গর্ভপাতের ওষুধ খাওয়ান রামবাবু। পরিবারের দাবি, বিষয়টি বাড়িতে প্রথমে জানাতে চায়নি ছাত্রীটি। কিন্তু তার শারীরিক কিছু লক্ষণ ধরা পড়ার পর বাড়ির লোকেদের সন্দেহ হয়। চাপাচাপি করতেই বিষয়টি সামনে আসে।

এর পরই ছাত্রীর বাড়ির লোকজন দলবল নিয়ে রামবাবুর বাড়িতে চড়াও হন। তাঁকে বাড়ি থেকে টেনে বার করে প্রথমে চলে বেধড়ক মার। তার পর রামবাবুর পোশাক খুলিয়ে নগ্ন করে শহরের ব্যস্ত রাস্তায় হাঁটানো হয়। গোটা ঘটনাটি ক্যামেরাবন্দি করে রাখেন কেউ কেউ।

হাঁটাতে হাঁটাতে রামবাবুকে সোজা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে পৌঁছতেই রামবাবুকে পোশাক দেয়া হয় লজ্জা নিবারণের জন্য। ছাত্রীটির পরিবার রামবাবুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছে। এর পরই গ্রেফতার করা হয় তাকে।

You may also like

ক্ষমতায় এলে বিমানবাহিনীসহ প্রতিটি বাহিনীর প্রয়োজনীয় আধুনিকায়ন করার আশ্বাস

আবারো ক্ষমতায় এলে বিমানবাহিনীসহ প্রতিটি বাহিনীর প্রয়োজনীয় আধুনিকায়ন