রাজধানীর বাইরেও চামড়া নিয়ে বিপাকে রয়েছেন ব্যবসায়ীরা

রাজধানীর বাইরেও চামড়া নিয়ে বিপাকে রয়েছেন ব্যবসায়ীরা। একদিকে ট্যানারি মালিকদের সিন্ডিকেট, অন্যদিকে মৌসুমি ব্যবসায়ীদের দৌরাত্বে অসহায় অবস্থায় আছেন সাধারণ চামড়া ব্যবসায়ীরা। একই সঙ্গে ট্যানারি মালিকদের কাছে গত তিন বছরের অধিকাংশ টাকা বকেয়া হওয়ায় যার পর নাই হতাশায় আছেন তারা।কোরবানির পর থেকে শুরু হয় ভৈরবের আড়তে চামড়া ব্যবসায়ীদের ব্যস্ততা। আশে পাশের বেশ কয়েকটি জেলা থেকে কোরবানীর পশুর চামড়া এসে জমা হয় এখানে । ভৈরবের চামড়া ব্যবসায়ীরা জানান গত বছরের তুলনায় এ বছর কোরবানি কম হওয়ায় চামড়া সংগ্রহ কম হয়েছে। তাছাড়া লবন দাম ও শ্রমিকদের পারিশ্রমিক বেড়েছে অনেক।ট্যানারি মালিকদের কাছে গত তিন বছরের পাওনার অধিকাংশই বকেয়া থাকায় এ বছর চামড়াও কিনতে পারছেন না এই আড়তের অধিকাংশ ব্যবসায়ী। আবার, নির্ধারিত মূল্যের থেকে অনেক বেশী দামে চামড়া কিনে বিপাকে পড়েছেন তাদের অনেকে।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, ট্যানারির মালিক আর সরকারের একটি অংশের কারসাজিতেই বিপর্যয়ের মুখে দেশের কাঁচা চামড়ার বাজার।

সিংক: সজল মিয়া, সাধারণ সম্পাদক, চামড়া ব্যবসায়ী সমিতি, ভৈরব।

চামড়ার কাঙ্খিত মূল্য না পেয়ে হতাশ হয়েছেন ব্রাহ্মনবাড়িয়ায় চামড়া ব্যবসায়ীরাও। নির্ধারিত মূল্যে চামড়া কিনেও অনেকেই তা বিক্রি করেছেন ২/৩শ টাকা লোকসানে।

You may also like

প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানালেন নওশাবা

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের মামলায় গ্রেপ্তার