দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে দেবীর চরণে অঞ্জলী

মহানবমীতে দেবী দূর্গাকে চামুন্ডা রূপে পূজা করেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। কারণ রাবণকে বধ করার সময় দূর্গা মা মুন্ডের বিনাশিনী রূপ ধারণ করেছিলেন। দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে দেবীর চরণে অঞ্জলী প্রদান করেন তার ভক্তরা।ধর্মের গ্লানি ও অধর্ম রোধ, সাধুদের রক্ষা, অসুর বধ এবং ধর্ম প্রতিষ্ঠার জন্য প্রতি বছর দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গা ভক্তদের মধ্যে আবির্ভূত হন। মহিষাসুর নিধনের সময় দেবী দুর্গা প্রচন্ড ক্রোধে কৃষ্ণবর্ণ রূপ ধারণ করেছিলেন। তাই পূজার এই আচারের সময় দেবীকে চামুন্ডা রূপে পূজা করা হয়, অর্থাৎ যিনি চন্ড ও মুণ্ডের বিনাশিনী। পূজার এই মুহূর্তটি আরও একটি কারণে স্মরণীয়। দেবী দুর্গার আশির্বাদ নিয়ে শ্রীরামচন্দ্র এই মুহূর্তেই রাবণকে বধ করেছিলেন। দেবী দুর্গার মহানবমী কল্পরম্ভ ও মহানবমী বিহিত পূজা প্রশস্তা। নবমী পূজায় যজ্ঞের মাধ্যমে দেবী দুর্গার কাছে আহূতি দেয়া হয়। সনাতন ধর্ম মতে, নবমী পূজার মাধ্যমে মানবকুলে সম্পদ লাভ হয়।পূজা শেষে ভক্তরা দেবীর চরণে অঞ্জলি প্রদান করেন। অঞ্জলি প্রদান শেষে প্রসাদ বিতরণ করা হয় ভক্তদের মাঝে। মহানবমীতে ভক্তরা মায়ের কাছে দেশ, জাতি ও বিশ্বের সকল জীবের মঙ্গল কামনায় আশীর্বাদ চাইবেন।তবে দেবী দূর্গার বিদায়ের সুর বাজছে, তাই অনেকের মনে ভর করছে বিষাদের ছায়া।

You may also like

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ

চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ