বদির ভাই-বেয়াইসহ ১০২ ইয়াবা ব্যবসায়ীর আত্মসমর্পণ

ইয়াবা কারবারে বহুল আলোচিত আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদির ভাই-বেয়াইসহ ১০২ জন আত্মসমর্পণ করেছে কক্সবাজারে। অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, দেশ রক্ষার্থে মাদক কারবারীদের ছাড় নেই। আর মাদক নির্মূলে অভিযান চলবে জানিয়ে আইজিপি, ইয়াবাসহ অন্যান্য মাদক ব্যবসায়ীদের এইভাবে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানান।

কক্সবাজারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ‘সেফহোমে’ থেকে শীর্ষ ইয়াবাকারবারীদের টেকনাফে আত্মসমর্পণ মঞ্চে আনা হয় শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে। তাদের দেখতে হাজারও মানুষের ভিড় জমে আত্মসমর্পণ মঞ্চের কাছে। উপস্থিত হন স্বজনরাও। ঘটা করে আয়োজিত ইয়াবা কারবারীদের আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানের মঞ্চ করা হয় টেকনাফ পাইলট হাইস্কুল মাঠে। সকাল পৌনে ১১টায় সেখানে উপস্থিত হন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তার হাতে প্রতীকীভাবে ইয়াবা ও অস্ত্র জমা দেয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তালিকাভুক্ত এক হাজার একশ’ ৫১জনের মধ্যে একশ’ দু’জন। জানানো হয়, তাদের মধ্যে অন্তত ৩৫ জন ইয়াবার গডফাদার।

আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে রয়েছে টেকনাফের সাবেক এমপি বদির চার ভাই আবদুল আমিন, আবদুর শুক্কুর, মোহাম্মদ সফিক ও মোহাম্মদ ফয়সাল, ভাগ্নে সাহেদুর রহমান নিপু এবং বেয়াই শাহেদ কামাল। আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বদির স্ত্রীসহ কক্সবাজারের তিন এমপি। গত বছরের ৪ মে মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের যুদ্ধ ঘোষণার পর বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় প্রায় তিনশ’ ইয়াবা কারবারি। তাদের মধ্যে সীমান্তে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে ৪২জন। এর মধ্যে ৩৭ জনই টেকনাফের।

তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ৭৩ জন গডফাদারের মধ্যে চারজন ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে। গত বছরের ডিসেম্বরে ইয়াবা কারবারীদের স্বাভাবিক জীবনে ফেরাতে পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেয় সরকার। জানুয়ারির মাঝামাঝি থেকে আত্মসমর্পণের জন্য কক্সবাজারের সেফহোমে জড়ো করা হয় ইয়াবা ব্যবসায়ীদের।

 

You may also like

সড়ক দুর্ঘটনায় দুই স্কুলশিক্ষার্থীসহ নিহত ৮

সড়ক দুর্ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, খুলনা ও