রংপুরে নিজ বাসভবনেই এরশাদের দাফন সম্পন্ন

অবশেষে স্থানীয়দের দাবির মুখে রংপুরের নিজ বাড়িতেই সমাহিত করা হলো সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদকে। এর আগে, তাকে বনানীর সামরিক কবরস্থানে দাফনের কথা ছিল। মানুষের ভালবাসার প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানকে পল্লী নিবাসে দাফন করার কথা জানান দলের নেতারা। শেষ পর্যন্ত নিজ বাসভবন রংপুরের পল্লী নিবাসে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ। মঙ্গলবার বিকেল ৫টা ৪০ মিনিটে রংপুরের পল্লী নিবাসে এরশাদকে দাফন করা হয়। এ সময় অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। এর আগে, সকালে চতুর্থ দফা জানাজার জন্য হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কফিন ঢাকা থেকে সেনাবাহিনীর একটি বিশেষ হেলিকপ্টারে রংপুরে নিয়ে যাওয়া হয়। জাতীয় পার্টির স্থানীয় নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ জানাজায় অংশ নিতে সকাল থেকেই সমবেত হতে থাকেন কালেক্টরেট ঈদগাঁহ ময়দানে।

পরে সাবেক এই রাষ্ট্রপ্রধানের প্রতি সম্মান জানানো হয়। এসময় নেতা কর্মীরা এরশাদকে রংপুরেই দাফনের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে। জানাজা শেষে দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ তার মরদেহ বহনকারী গাড়ি নিয়ে বিকেল সাড়ে ৪টায় পল্লী নিবাসে পৌঁছান। দাফনের আগে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। এরপর সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে এরশাদকে দাফন করা হয়। রংপুরে অসমাপ্ত বাড়ি পল্লী নিবাসকে উপমহাদেশের রাজনীতির একটি প্রশিক্ষণশালা করতে চেয়েছিলেন এরশাদ। অসুস্থ অবস্থায়ও এর নির্মাণকাজ তদারকি করতেন তিনি। গত ২৮ জুন রংপুরে যাবার কথা ছিল তাঁর। অবশেষে লাশ হয়েই পল্লী নিবাসে চিরশায়িত হলেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।

 

You may also like

২১ আগস্ট, বুধবার ২০১৯

বেলা ১২:০৫ : বাংলা সিনেমা বিকেল ৫:২০ :