বিশ্ববাজারে চাহিদা হ্রাসের অজুহাতে পানির দামে চামড়া কিনছেন আড়তদাররা

বিশ্ববাজারে চাহিদা হ্রাস এবং নগদ টাকা না থাকার দোহাই দিয়ে পানির দামে কাঁচা চামড়া কিনছেন পোস্তার আড়তদাররা। ১৫/২০ হাজার টাকার খাসির চামড়া বিক্রি হচ্ছে আধা লিটার পানির দামে। সরকার প্রতি বর্গফুট চামড়ার দাম ৪৫ থেকে ৫০ টাকায় বেঁধে দিলেও এর অর্ধেকও পাচ্ছেন না মৌসুমি ব্যবসায়ীরা। পাড়া-মহল্লা থেকে বেশি দামে চামড়া কিনে পঞ্চাশ থেকে একশ’ টাকায় বিক্রি করতেও বাধ্য হচ্ছেন কেউ কেউ।

কোরবানির পশুর চামড়া সংরক্ষণে এখন চরম ব্যস্ততা রাজধানীর পোস্তার আড়তগুলোতে । ঈদের দিনে কেনা চামড়া লবণ দিয়ে স্তুপ করা হলেও মঙ্গলবার তেমন কোন চামড়া কেনেনি আড়তদারেরা। খুব ভালো মানের বড়সড় গরুর চামড়া সেখানে চার থেকে পাঁচশ’ টাকায় কেনা হলেও ছোট চামড়ার কদর নেই। আর তাই ট্রাক বা ভ্যানে চামড়া নিয়ে পোস্তায় গিয়ে বিপাকে পড়েন খুচরা ব্যবসায়ীরা।

লাভ দূরে থাক এ আড়ৎ সে আড়ত ঘুরেও খাটানো পুঁজি তুলতে পারেননি অনেকে। চামড়া নষ্ট হয়ে গেছে – আড়তদারদের এমন অজুহাতে শেষ পর্যন্ত মাত্র ৬০ টাকা দরে চামড়া বেচতেও বাধ্য হয়েছেন কেউ কেউ। তবে, কাঁচা চামড়া ক্রেতা সমিতির দাবি, প্রতি বর্গফুট ৩৫-৪০ টাকা দরে চামড়া কিনছেন তারা। চুয়াত্তরের দুর্ভিক্ষের পর দেশে চামড়ার দাম এতটা কমেনি স্বীকার করে তিনি বলেন, নগদ টাকার অভাবেই নজিরবিহিন এ দরপতন। আড়তদাররা বলছেন, চামড়ার বাজারে ধসের কারণে কিছু চামড়া পাচার হলেও লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী এক কোটি পিসের বেশি চামড়া সংগ্রহ সম্ভব হবে।

 

You may also like

০৬ ডিসেম্বর, শুক্রবার ২০১৯

সকাল ৮:৩০ : দিন প্রতিদিন বেলা ১০:১০ :