সংসদ ভবনে অধ্যাপক মোজাফফরের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত

রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং সর্বস্তরের জনসাধারনের শ্রদ্ধায় বিদায় নিলেন মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা ও ন্যাপ সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ। জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় তাঁর প্রথম নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। শহীদ মিনারে সর্বসাধারন তার মরদেহে শ্রদ্ধা জানায়। এসময় তার কর্মময় জীবনের কথা স্মরণ করে রাজনীতিবিদরা নতুন প্রজন্মকে তা থেকে ত্যাগের শিক্ষা গ্রহনের আহ্বান জানান।

১৯৭৯ সারের সংসদের নিবৃআচিত সদস্য হিসেবে শ্রদ্ধা জানাতে শনিবার সকালে সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় নেয়া হয় অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের লাশ। সেখানে মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা পরিষদের এই সদস্যের প্রতি জানানো হয় রাষ্ট্রীয় সম্মান। এরপর তার নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সংসদ সদস্য ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলেরনেতা ও শুভাকাঙ্খীরা অংশ নেন। জানাজা শেষে তাঁর মরদেহে শেষ শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রতির পক্ষে তার সামরিক সচিব, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনা ও জাতীয় সংসদের স্পিকার। এরপর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

এরপর সংসদ সদস্য এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা শ্রদ্ধা জানান। শ্রদ্ধা জানানোর পর বিভিন্ন দলের নেতারা মোজাফফর আহমদের বর্ণ্যাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের কথা তুলে ধরেন । বলেন, এমন রাজনীতিবিদ আর পাওয়া যাবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে । সংসদ ভবনে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর মোজাফফর আহমদের লাশ নিয়ে যাওয়া হয় কেন্দ্রীয শহীদ মিনারে। এখানে সর্বস্তরের মানুষ তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানায়।

বিভিন্ন দলের পক্ষ থেকেও শ্রদ্ধা জানানো হয় ন্যাপ সভাপতির মরদেহে । রবিবার মোজাফফর আহমেদ চিরশায়িত হবেন কুমিল্লায় পারিবারিক কবরস্থানে। শুক্রবার রাত ৮টায় রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মোজাফফর আহমদ। তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৭ বছর। ১৯৫৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির অধ্যাপনা ছেড়ে দিয়ে সম্পূর্ণভাবে রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন তিনি।

আহাম্মেদ সরোয়ার, বাংলাভিশন, ঢাকা ।

You may also like

তিস্তার পানি বিপদসীমার ওপরে, পানিবন্দী অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ

কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি আর উজানের ঢলে লালমনিরহাটে বেড়েছে