আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর এক বছর আজ

রূপালী গিটারের বরপূত্র আইয়ুব বাচ্চুর চলে যাওয়ার এক বছর আজ। ঘুমভাঙ্গা শহরের এক ঝাঁক মানুষকে কাঁদিয়ে গত বছরের এই দিনে ধরনী ছেড়ে তিনি হয়ে যান দূর আকাশের তারা। বুকের সব কষ্ট দুহাতে সরিয়ে নিজেকে বদলে ফেলে বসত গড়েছেন পরপারে। শিল্পীর দেহান্তর হলেই সব শেষ হয়ে যায় না, আইয়ুব বাচ্চু প্রতিদিনের চর্চায়, ভক্তের স্মৃতিতে অমলিন। রুপালী গিটার ফেলে একদিন চলে যাবে বহুদূরে, গানে গানে এ কথা বহুবার ভক্তদের শুনিয়েছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। কিন্তু তখন ভক্তরা বুঝতে পারেনি গিটারের যাদুকর সত্যি একদিন হারিয়ে যাবেন চোখের পলকে।

স্বপ্নের মায়া ডোরে শৈশবেই গিটারের তারে জীবন বেঁধেছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। তিন দশকের সুর সাধনার এই বিরল শিল্পীর প্রায় সব গানই ছুঁয়েছিল জনপ্রিয়তার শীর্ষবিন্দু। চলো বদলে যাই, ফেরারী মন বা ঘুমন্ত শহরের মতো ব্যান্ড গানগুলো পেয়েছে আন্তর্জাতিক মানের স্বীকৃতি। শুধু তরুন প্রজন্ম নয়, সংগীতের বিভিন্ন ঘরানার উঠানেই এমন আবেদন তৈরি হয় না সব শিল্পির গান। মায়াভরা এই পৃথিবীতে তাই আইয়ুব বাচ্চুর বিকল্প হয় না।

কষ্ট পেতে চাওয়া, আসলে কেউ সুখী নয়- আইয়ুব বাচ্চুর এমন অনেক গানে ছিলো বিষাদের সুর। অজানা দঃখবোধ। হয়তো এ কারনেই বারবার উড়াল দিতে চেয়েছেন আকাশে। অভিমানে বা স্রষ্টার সৃষ্টির নিয়মে উড়াল দিলেও নতুন প্রজন্মের সংগীত চর্চার মধ্য দিয়ে বেঁচে থাকবে একজন আইয়ুব বাচ্চু।

You may also like

ঘূর্ণিঝড়ে পশ্চিমবঙ্গে ৬০ হাজার ঘর-বাড়ির ক্ষতি

বুলবুলের আঘাতে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১