দেশের বিভিন্ন স্থানে মহাসড়ক অবরোধ করে পরিবহন শ্রমিকদের বিক্ষোভ

নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন পরিবহন শ্রমিকরা। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা। বিস্তারিত ডেস্ক রিপোর্টে। নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুরের বিভিন্ন স্থানে অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন পরিবহন শ্রমিকরা। দুর্ভোগে পড়েছেন শত শত যাত্রী।

চট্টগ্রামেও পণ্যবাহী গাড়ি চলাচল বন্ধ রয়েছে। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, বুধবার ভোর ৬টা থেকে পণ্যবাহী ট্রাক, কাভার্ডভ্যান চালাচ্ছেন না চালক ও শ্রমিকরা। তবে বন্দর থেকে কনটেইনার পরিবহনে ব্যবহৃত প্রাইম মুভার বা ট্রেইলার চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে । বাস, সিএনজি অটোরিকশা আর কার্ভার্ড ভ্যানের ত্রিমুখী ধর্মঘটে নাকাল সিলেটের প্রধান পর্যটন এলাকাগুলোর সাধারণ মানুষ।

রাজশাহীর বিভিন্ন রুটে আংশিক বাস চলাচল করছে। শ্রমিকরা সড়ক আইন-২০১৮ সকল ধারায় জরিমানার টাকা তাদের সামর্থের মধ্যে করার জন্য আইন সংশোধনের দাবি জানান। এদিকে, রাজশাহীর নওদাপাড়ায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা দফায় দফায় ট্রাক ড্রাইভারদের উপর হামলা চালিয়ে মারধর করেছে। খুলনা থেকে সব রুটে পরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। পরিবহন ধর্মঘটের সাথে যুক্ত হয়েছে ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান ধর্মঘট। যাত্রী দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

কুমিল্লার কোন স্ট্যান্ড থেকে গাড়ি না ছাড়ায় শতশত যাত্রী ভোগান্তে পড়েন। নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে যশোরের সাথে যুক্ত ১৮টি রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফরিদপুর পৌর বাস টার্মিনাল থেকে কোনো যানবাহন পশ্চিমাঞ্চলের জেলা গুলোতে ছেড়ে যায় নি। এই সকল রুটের যাত্রীবাহী বাস বন্ধ থাকায় বিপাকে যাত্রীরা।

কুড়িগ্রামের অভ্যন্তরীন ও দুরপাল্লার সব রুটে বাস, ট্রাক, ট্যাংকলড়ী, কাভার্ডভ্যান চলাচল বন্ধ থাকায় দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রী ও ব্যবসায়ীরা। বগুড়ায় ট্রাক ধর্মঘটের প্রথম দিনেই পাইকারি কাঁচা বাজারের ওপর প্রভাব পড়েছে। এদিকে, কোন ঘোষনা ছাড়া বগুড়ার বাস চালকরা কর্মবিরতি শুরু করায় জেলার সাথে রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ১৬ জেলা সহ দক্ষিণাঞ্চলের বাস চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন নাটোরের পরিবহন শ্রমিকরা, দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। বুধবার সকাল থেকে শুরু হয়েছে ট্রাক ও পণ্যবাহী পরিবহন ধর্মঘটও।

মুন্সীগঞ্জ ও ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে বন্ধ রয়েছে বাস-ট্রাক চলাচল । পরিবহণ সংকটে সকাল থেকে চরম ভোগান্তিতে পরে স্কুল গামী শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষ। চুয়াডাঙ্গা থেকে দূরপাল্লা ও আন্তঃজেলা রুটে সব ধরণের যাত্রীবাহী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। ট্রাক ও পণ্যবাহী পরিবহন ধর্মঘট শুরু হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন কাঁচামাল ব্যবসায়ীরাও।

পাবনা থেকে অভ্যন্তরীণ ও দুরপাল্লার রুটে বাস চলাচল আংশিক বন্ধ রয়েছে। তবে কর্মবিরতি উপেক্ষা করে চালক শ্রমিকদের একটি অংশ বাস চালাচ্ছেন। অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে পাবনায় বন্ধ রয়েছে ট্রাক ট্যাংকলরি ও কাভার্ডভ্যান চলাচল। ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান মালিক-শ্রকিদের ডাকা ধর্মঘটের কারণে হিলি স্থলবন্দর থেকে দেশের অভ্যন্তরে সকল প্রকার পণ্য পরিবহণ বন্ধ রয়েছে। দিনাজপুরে পন্যবাহী ট্রাক, কাভার্ডভ্যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন চালকরা।

সাতক্ষীরায় তৃতীয় দিনের মত ধর্মঘট পালন করছেন শ্রমিকরা। কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে কোন বাস ছেড়ে যায়নি। এছাড়া, টাঙ্গাইল, ঝিনাইদহ, মেহেরপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও বরগুনা ও পটুয়াখালীসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে চলছে বাস ধর্মঘট।

 

You may also like

যতো ক্ষমতাবান হোক, ছাড় নেই সাহেদের: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক মোহাম্মদ শাহেদের অপর্কীতির জন্য লজ্জিত