সারাদেশে বেড়েছে শীতের তীব্রতা

সারাদেশে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। ঘন কুয়াশা আর হিমেল বাতাসে নাকাল লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রামসহ উত্তরের জেলাগুলোর জনজীবন। এছাড়া ঠান্ডায় শ্বাসকষ্ট ও ডায়রিয়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে বেড়েই চলেছে রোগীর সংখ্যা। ঘন কুয়াশা ও বাতাসে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে উত্তরের সীমান্তবর্তী লালমনিরহাট জেলার স্বাভাবিক জীবনযাপন। বিশেষ করে হাড় কাঁপানো কনকনে ঠান্ডায় নাজেহাল হয়ে উঠেছেন তিস্তা ও ধরলা নদীর চরাঞ্চলবাসী। অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। ঠান্ডার কারণে কৃষি শ্রমিকরা পড়েছেন চরম বিপাকে। শীত উপেক্ষা করে কাজে যোগ দিলেও টিকতে পারছেন না জমিতে।

কুড়িগ্রামে টানা শীতের প্রকোপে জনজীবনে স্থবিরতা নেমে এসেছে। হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে শিশু ও বৃদ্ধ রোগীর সংখ্যা। এদের বেশির ভাগই ডায়রিয়া ও শ্বাসকষ্ট। এদিকে, ঠান্ডায় আলু ও বীজতলা নিয়ে আশংকায় রয়েছেন কৃষকরা। এছাড়া, গরম কাপড়ের অভাবে খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করছেন অনেকেই। শনিবার কুড়িগ্রামে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মেহেরপুর, রংপুর ও চুয়াডাঙ্গায় বাড়তে শুরু করেছে শীতের তীব্রতা। সন্ধ্যার পর থেকে সকাল পর্যন্ত কুঁয়াশার চাদরে ঢেকে থাকছে চারিদিক। শ্রমজীবী মানুষগুলো ভোরে ঘর থেকে বের হলেও তাদের কষ্টের সীমা নেই।

 

You may also like

আজ বিশ্ব ফুসফুস দিবস

করোনার প্রভাবে মানুষের ফুসফুসের সংক্রমন বেড়েছে কয়েকগুন। করোনা