করোনার শঙ্কা বাড়িয়েছে ইতালি ফেরতরা

বিদেশ ফেরত যাত্রীদের প্রাথমিকভাবে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। পরীক্ষা শেষে সবাইকে পর্যায়ক্রমে বাড়িতে পাঠানো হবে। জানিয়েছে আইইডসিআর। তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। সারাদেশে এখন পর্যন্ত দুই হাজার ৩১৪ জন কোয়ারেন্টাইনে আছে। নয় জন আছে আইসোলেশনে। হোম কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম কঠোরভাবে মনিটর করা হচ্ছে, যারা নিয়ম ভঙ্গ করবে তাদেরকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে বাধ্য করবে আইইডিসিআর। সংস্থাটির পরিচালক মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, করোনা ইস্যুকে আর হালকাভাবে নেয়ার সুযোগ নেই। কোন তথ্য লুকোচুরি হচ্ছে না বলেও দাবি করেছেন তিনি।

শনিবার মধ্য রাতে ইতালি থেকে দেশে আসেন ৫৮ জন। বিমান বন্দরে প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরিক্ষা শেষে রাতেই ৪৮ জনকে গাজীপুরে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। আর সকালে একশ’৫৫ বাংলাদেশি ঢাকায় পৌছায়। বিমান বন্দরে প্রাথমিক পরীক্ষা -নিরীক্ষা শেষে তাদের নেয় হয় আশকোনা হজ ক্যাম্পে। সেখানেই তাদের পরীক্ষায় নিশ্চিত হওয়া হবে, তাদের শরীরে করোনা ভাইরাস আছে কিনা? পরে প্রশাসনের মাধ্যমে পাঠানো হবে নিজ বাড়িতে। যেখানে তাদের থাকতে হবে কোয়ারেন্টাইনে।

হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ফ্লাইটের সংখ্যার কমেছে আগের চেয়ে। তবে ইউরোপ থেকে ফ্লাইট বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি এখনো। আইইডিসিআর বলছে, সারাদেশে হোম কোয়ারেন্টাইন সবচেয়ে উত্তম পদ্ধতি। এরকম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ২৩১৪ জন, যারা সবাই বিদেশফেরত। তাদের মনিটর করা হচ্ছে এবং নিয়ম নীতি মেনে চলার কঠোর নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে। ১৪ দিন পার হওয়ার আগে কেউ নিশ্চিত না, কে আক্রান্ত আর কে সুস্থ।  যে দুজন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে, তারাও বিদেশ ফেরত। আইইডিসিআরের কাছে দুই হাজার কিট আছে করোনা পরীক্ষা করার। পাইপলাইনে আরো আছে। যারা রাজধানীর বাইরে কোয়ারেন্টাইনে আছে, স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাদের ঢাকায় আসার দরকার নেই। এতে অনেক লোক আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আরিফুল হক, বাংলাভিশন, ঢাকা

You may also like

০৩ এপ্রিল, শুক্রবার ২০২০

সকাল ৮:৩০ : দিন প্রতিদিন বেলা ১০:০২ :