সারা দেশে কোয়ারেন্টাইনে আড়াই হাজারের বেশি মানুষ

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দেশের বিভিন্ন জায়গায় হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে আড়াই হাজারের বেশি মানুষকে। যেখানে বেশি লোকজনের সমাগম হবে সেখানে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর ঝুঁকি রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

গাজীপুর মহানগরের পূবাইলে মেঘডুবি এলাকায় মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে রাখা শনিবার ইতালিফেরত ৪৮ জনের মধ্যে চারজনকে উত্তরার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সন্দেহে তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাকি ৪৪ জনকে রাখা হয়েছে নিবিড় পর্যবেক্ষনে। চট্টগ্রামে এখন পর্যন্ত বিদেশফেরত ২৯ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। কোন প্রবাসী কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম নামলে জেল ও আর্থিক জরিমানা করা হবে বলে হুঁশিয়ারি করেছেন চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদ। সন্ধ্যায় এক জরুরি বৈঠকে তিনি চট্টগ্রামে চলমান বাণিজ্যমেলা স্থগিতের অনুরোধ জানান। এদিকে, চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের সভাসমাবেশ পরিহারের আহ্বান জানিয়েছেন জেলা সিভিল সার্জন।

ঝিনাইদহে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রবাসীসহ নতুন করে একশ’ ৮৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রেখেছে স্বাস্থ্যবিভাগ। এরমধ্যে মহেশপুর উপজেলার একশ’ ৭৯ জন, কোটচাঁদপুরের আটজন এবং সদর উপজেলার একজন রয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত জেলায় দুইশ’ ১০ জনকে রাখা হয়েছে হোম কোয়ারেন্টাইনে।

জয়পুরহাটে সিঙ্গাপুর ও ইতালি ফেরত পাঁচ প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তারা সবাই জেলা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিবিড় পর্যবেক্ষনে থাকবেন বলে জানিয়েছে সিভিল সার্জন। মানিকগঞ্জে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা প্রবাসীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে দুইশ’ ৫৪ জন। তাদের মধ্যে অনেকেই হোম কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম মানছেন না বলে অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী। তবে হোম কোয়ারেন্টানের নিয়ম মানার বিষয়ে তদারকি শুরু করেছে প্রশাসন।

ফেনীতে ‘হোম কোয়ারেন্টিনে’ রাখা হয়েছে ১১৬ জনকে । এদের মধ্যে ২২ জন প্রবাসী এবং ৯৪ জন তাদের পরিবারের সদস্য। জেলা সিভিল সার্জন সোমবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে জানান, ৯ মার্চ থেকে বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের ‘হোম কোয়ারেন্টিনে’ রাখা শুরু হয়। চুয়াডাঙ্গায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে ১২ মার্চ ইতালি ফেরত এক যুবককে সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হয়েছে। তার স্বাস্থ্য পরীক্ষায় ঢাকা থেকে চুয়াডাঙ্গায় যাচ্ছে আইইডিসিআর এর একটি প্রতিনিধি দল। বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

ময়মনসিংহের সদর উপজেলা, নান্দাইল, ফুলবাড়িয়া ও গফরগাঁয়ে ইতালি, স্পেন, আমেরিকা, সৌদিআরব ও মালয়েশিয়া ফেরত ২৯ প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এরআগে বিদেশফেরত আরও আটজনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এছাড়া, খুলনায় ৮ জনকে গৃহ পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। এরমধ্যে ৬ জন বিদেশ ফেরত ও দুইজন স্থানীয়। মুন্সীগঞ্জে ৪৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এরা সবাই বিদেশফেরত বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

You may also like

ওয়াশিংটনসহ ২৫টি শহরে কারফিউ

কারফিউ জারি আর ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের মোতায়নের পর