বন্যা পরিস্থিতির অবনতিতে চরম দুর্ভোগে পানিবন্দি মানুষ

দেশের বেশিরভাগ নদ-নদীর পানি বাড়ছেই। এ অবস্থা আরো দুদিন থাকবে বলে জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। বন্যা পরিস্থিতির অবনতিতে চরম দুর্ভোগে পানিবন্দি মানুষ। কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। জেলার ১৬টি নদনদীর পানি অস্বাভাবিকহারে বেড়েছে। ধরলা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার অনেক ওপরে। ৭৩টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫০টিই তলিয়ে গেছে। পানিবন্দি প্রায় দেড় লাখ মানুষ। করোনার মধ্যে বন্যা মরার ওপর খাড়ার ঘায়ের মতো দুর্গতদের কাছে। দেখা দিয়েছে গো-খাদ্যের সংকট। ঝুঁকিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রতিরক্ষা বাঁধ।

আগাম বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে ফসল ও মাছের। পাঁচ দিন ধরে তিস্তার পানি বিপদসীমার উপরে। তলিয়ে আছে রংপুরের গংগাচড়া, কাউনিয়া ও পীরগাছা উপজেলার ২৪ ইউনিয়নের নিন্মাঞ্চল ও চর এলাকা। মৌসুমি ফসলসহ পুকুরও পানির নিচে। সিরাজগঞ্জে যমুনার পানি বেড়ে প্রতিদিন তলিয়ে যাচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। এতে বাড়ছে পানিবন্দি মানুষের দুর্গতিও। দিশেহারা দরিদ্র অসহায়রা। সহায়সম্বল, গরু-ছাগল,হাস-মুরগী নিয়ে বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ ও উঁচু জায়গায় আশ্রয় নিয়েছেন তারা। জ্বালানি,শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকটে তারা।

বগুড়ায় যমুনা নদীতীরবর্তী সোনাতলা, সারিয়াকান্দি, ধুনটের ২৫টি গ্রাম পানির নিচে। সারিয়াকান্দি পয়েন্টে যমুনার পানি বিপদসীমার উপরে। বিভিন্ন জায়গায় দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। জামালপুরের বন্যা পরিস্থিতি আগের মতোই। বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে যমুনার পানি বিপদসীমার ওপরে। লালমনিরহাটেও তলিয়ে গেছে নতুন নতুন এলাকা। শতাধিক চর ও দ্বীপচরে পানিবন্দি মানুষকে কাটাতে হচ্ছে খেয়ে না খেয়ে। নলকুপগুলো ডুবে যাওয়ায় চরম সংকট দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানির। টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলে নেত্রকোনা ও কলমাকান্দায় নিম্নাঞ্চলও ডুবে গেছে। এতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে এসব এলাকার আমন বীজতলার। এদিকে, সিলেটের নদনদীগুলোর পানি কিছুটা কমতে শুরু করেছে। তবে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি।

You may also like

যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণের রেকর্ড

করোনা মহামারিতে বিশ্বে গেলো কয়েকঘন্টায় আরো দেড় হাজার