দেশে করোনায় আরো ৫৫ জনের মৃত্যু

দেশে করোনায় আরো ৫৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে শনাক্তের চার মাসে মৃত্যু দুই হাজার ৫২। আগের দিনের চেয়ে মৃত্যু বাড়লেও কমেছে শনাক্তের সংখ্যা। নতুন দুই হাজার সাতশ’ ৩৮ জনসহ মোট শনাক্ত এক লাখ ৬২ হাজার চারশ’ ১৭। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিচ্ছিন্নভাবে লকডাউন না করে অতীত অভিজ্ঞতার ফলাফলগুলোকেও বিশ্লেষণ করতে হবে। এতে এক-দেড় মাসের মধ্যে সংক্রমণ কমে আসবে বলে আশাবাদী তারা। রবিবারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বুলেটিনে জানানো হয়, ১২০ তম দিনে এসে ৬৮ টি পরীক্ষাগারে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৩ হাজার ৯৮৮ টি। গত কয়েকদিনের তুলনায় বেশ কমেছে শনাক্তের সংখ্যা। দুই হাজার ৭৩৮ জনসহ মোট শনাক্ত এক লাখ ৬২ হাজার ৪১৭। একই সময়ে ৫৫ জনের প্রাণ গেছে করোনা ভাইরাসে। এ পর্যন্ত মারা গেলেন দুই হাজার ৫২ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৯০৪ জন।

শনাক্তের হার ১৯ দশমিক পাঁচ সাত, সুস্থতার হার ৪৪ দশমিক সাত দুই ও মৃত্যুর হার এক দশমিক দুই ছয়।  এ পর্যন্ত মৃতদের বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ষাটোর্ধ্বদের মৃত্যুর সংখ্যা ৮৯০ জন। সংখ্যার বিচারে দশ বছরের কম বয়সী মারা গেছেন ১৩ জন। ষাটোর্ধ্বদের মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি ৪৮ দশমিক ৭৩। সবচেয়ে কম ১০ বছরের নিচে শূন্য দশমিক ছয় তিন। বিভাগওয়ারী বিশ্লেষণে সবচেয়ে বেশি মারা গেছে ঢাকা বিভাগে এক হাজার সাত জন। এরপরই চট্টগ্রামে ১০২ জন। আর সবচেয়ে কম ময়মনসিংহে ৪৯ জন। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সংক্রমণ পরিস্থিতি ও স্বাস্থ্য খাতের সক্ষমতা দেশে দেশে ভিন্ন। তাই এক দেশের সাথে আরেক দেশের তুলনা কঠিন। এদিকে, খাবারের মাধ্যমে করোনা সংক্রমিত হয় না বলে জানানো হয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের ব্রিফিংয়ে। তবে নিরাপত্তা নিশ্চিতে খাদ্যবাহিত রোগ প্রতিরোধের দিকে নজর দেয়ার পরামর্শও দেয়া হয়েছে। তাইমুর রশীদ, বাংলাভিশন, ঢাকা।

You may also like

স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থী সিফাতের জামিন

পুলিশের মামলায় জামিন পেয়েছেন স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থী সাহেদুল ইসলাম