কমে আসছে ব্রহ্মপুত্র আর যমুনার পানি

কমে আসছে ব্রহ্মপুত্র আর যমুনার পানি। তবে বাড়ছে মেঘনার পানি। দেশের মোট ১৮টি নদ-নদীর পানি এখনও বিপদসীমার উপর দিয়েই বইছে। এদিকে, রাজধানীর নিচু এলাকাগুলোর বন্যা পরিস্থিতি সামান্য অবনতির আশঙ্কা করছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। ব্রহ্মপুত্র, যমুনা, মেঘনা আর পদ্মার পানি কমতে শুরু করেছে। তবে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের তথ্যমতে, এখনও দেশের মোট ১৮টি নদ-নদীর পানি এখনও বিপদসীমার উপরেই আছে। কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, বগুড়া, জামালপুর, নাটোর, সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, নওগাঁ, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, চাঁদপুর, রাজবাড়ি, শরীয়তপুর এবং ঢাকা জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির আভাস দিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। আর স্থিতিশীল থাকবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও নারায়ণগঞ্জের বন্যা।

শরীয়তপুরের বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। শরীয়তপুর সদর, জাজিরা, নড়িয়া, ভেদরগঞ্জ উপজেলার প্রায় ৩ লাখ মানুষ এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে পানিবন্দি। পদ্মার তীব্র স্রোতে দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। যদিও জিও ব্যাগ ফেলতে শুরু করেছে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড। মুন্সীগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তি। তবে এখনও জেলার ২৬১টি গ্রাম পানিতে তলিয়ে আছে। সরকারি হিসাবে পানিবন্দি লক্ষাধিক মানুষ। এদের মধ্যে ৬১৭টি পরিবার আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান করছে। গোপালগঞ্জে মধুমতিসহ অভ্যন্তরীণ নদ-নদীর পানি অস্বাভাবিকভাবে বাড়ছে। প্লাবিত হয়েছে জেলার নিচু এলাকাগুলো। এদিকে, জামালপুরে যমুনার পানি কমতে থাকলেও দুর্ভোগ বাড়ছে দুর্গত এলাকায়। খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির সংকটে বিপর্যস্ত বানভাসীরা।

সিরাজগঞ্জের কাজিপুর এবং শহর রক্ষা বাঁধের হার্ডপয়েন্টে যমুনার পানি কিছুটা কমছে। তবে অপরিবর্তিত আছে জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি। এক মাসের বেশি সময়ের এই চলমান বন্যায় খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির চরম সংকটে সিরাজগঞ্জের পাঁচ লক্ষাধিক বানভাসী। এদিকে, যমুনার করাল গ্রাসে বিলীন হচ্ছে ঘরবাড়ি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ হাট-বাজার। কুড়িগ্রামে ব্রহ্মপুত্রের পানি কমলেও ধরলার পানি বেড়েছে। দীর্ঘস্থায়ী বন্যার কারণে উপদ্রুত এলাকায় দেখা দিয়েছে পানিবাহিত রোগসহ গবাদীর পশুর রোগ বালাই। ত্রাণ স্বল্পতার কথা বললেন বন্যার্তরা। নাটোরে আত্রাইসহ সব নদ-নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। তবে কমছে না বানভাসীদের দুর্ভোগ। নিজেদের পাশাপাশি গবাদি পশু নিয়েও বিপাকে চলনবিল অঞ্চলের মানুষ। বগুড়ায় যমুনার পানি কমেও বইছে বিপদসীমার ওপরে। এদিকে, সারিয়াকান্দির পাশ দিয়ে প্রবাহিত বাঙ্গালি নদীর পানি বৃদ্ধিতে, সারিয়াকান্দি পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।

You may also like

চরম দুর্ভোগে বানভাসীরা

বেশিরভাগ নদ-নদীর পানি কমতে থাকায় উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের