মনের পশুত্বকে বিসর্জনের আশায় পশু কুরবানি করেছেন সামর্থবান মুসল্লিরা

মনের পশুত্বকে বিসর্জনের আশায় ঈদের জামাত শেষে পশু কুরবানি করেছেন সামর্থবান মুসল্লিরা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশু জবাইর আহ্বান থাকলেও বেশিরভাগই তা মানছেন না। এতে বাড়ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি। মহামারি করোনা আর বন্যায় জর্জরিত অর্থনীতি এবছরের ঈদ আয়োজনকে অনেকটাই ফিঁকে করে দিয়েছে।

কমেছে পশু কুরবানির সংখ্যা। ইসলাম ধর্মমতে, আল্লাহকে খুশি করতে নিজের পুত্রকে কুরবানি দিতে প্রস্তুত হয়েছিলেন হজরত ইব্রাহিম আলাইহিস ওয়া সালাম। তখন থেকেই মুসলিম উম্মাহর মধ্যে প্রতি বছর ১০ই যিলহজে পশু কুরবানির রেওয়াজ। প্রতীকী এ কুরবানি মূলত মানুষের ভেতরের পশুত্বকে ত্যাগের শিক্ষা দেয়।

You may also like

পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটির পর খুলেছে অফিস-আদালত

পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটির পর খুলেছে অফিস-আদালত। এবার