জিয়াউর রহমান দিয়েছিলেন কারফিউয়ের গণতন্ত্র: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন, দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসনিক ব্যবস্থা গড়তে চায় সরকার। সে লক্ষ্যে সকল মন্ত্রণালয়ের নিজস্ব শুদ্ধাচার পরিকল্পনা করে তা বাস্তবায়নের আহবান জানিয়েছেন তিনি। বলেন, করোনা পরিস্থিতি, দুর্যোগ- সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে প্রতিযোগিতার মানসিকতা নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রশাসনের কর্মকর্তাদেরও দায়বদ্ধতা রয়েছে, জনসেবা করতে হবে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সোনার বাংলা গড়ে তুলতে হবে। ২০২০-২১ অর্থবছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদনা চুক্তি অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে অনলাইনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে গত অর্থবছরে যেসব মন্ত্রণালয় কাজে বেশি অগ্রগতি দেখিয়েছে সেগুলোকে পুরস্কৃত করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, প্রশাসনের কর্মকর্তারা ভালো কাজ করছেন বলেই দেশের মানুষ সরকারের নেয়া উন্নয়ন কর্মসূচির সুফল পাচ্ছে। করোনা কালে মাঠ পর্যায় থেকে শুরু করে প্রশাসনের কেন্দ্র পর্যন্ত সরকারি কর্মকর্তারা ঝুকি নিয়ে কাজ করেছেন, সেজন্য তাদের প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী, উৎসাহ দেন আরো ভালো করার।  শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিলো, স্বয়ংসম্পূর্ণ, মর্যাদাশীল দেশ গড়ে তোলা। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশকে বিপথে নেয়ার চেষ্টা হয়েছে। বিরাজনীতিকরণের ষড়যন্ত্র চলেছে। করোনার প্রভাব অন্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পড়েছে, স্বীকার করে এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় তার সরকারের নেয়া পদক্ষেপগুলো তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকারের দেয়া ডিজিটাল ব্যবস্থার সুযোগ নিয়ে তার সরকারকেই সমালোচনা করছে একটি মহল। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ভালো কাজ করেছে বলেই করোনা পরিস্থিতি ভালো ভাবে মোকাবেলা করেছে সরকার।

 

You may also like

১৯ অক্টোবর, সোমবার ২০২০

সকাল ৮:৩০ : অনুষ্ঠান ‘দিন প্রতিদিন’। সকাল ১০:৩০