মুশফিকের দৃঢ়তায় বাংলাদেশের দারুণ জয়

নিদাহাস ট্রফিতে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেই জয়ে ফিরেছে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টিতে নিজেদের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে শ্রীলংকার ৫ উইকেটে হারিয়েছে টাইগাররা।শনিবার কলোম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে শ্রীলংকার ৬ উইকেটে ২১৪ রানের স্কোর তাড়া করে, ২ বল হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। ৩৫ বলে অপরাজিত ৭২ রানের দূর্দান্ত এক ইনিংসে ম্যাচ সেরা হয়েছেন মুশফিক রহিম। তামিম ইকবাল ৪৭ ও লিটন দাস ৪৩ রান করে; জয়ে রেখেছেন বড় অবদান। এই জয়ে দুই ম্যাচে দুই পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালের স্বপ্ন জিইয়ে রেখেছে টাইগাররা।

গ্যালারীতে প্রায় ৩০ হাজার দর্শক। অথচ পিন পতন নিরবতা। প্রেমাদাসায় তখন যে জয়ের মঞ্চ তৈরী করে ফেলেছে বাংলাদেশ। এক কোনে গুটিকয় বাঙালী দর্শক। তারাও অপেক্ষায় দুরু দুরু বুকে। তীরে এসে না আবার তরী ডোবে। ২০তম ওভারের চতুর্থ বলটিতে এক রান নিয়েই মুশফিকুর রহিমের নাগিনা ড্যান্স। বাংলাদেশ যে অসাধ্য সাধন করে ফেলেছে। ২১৫ রানের পাহাড় টপকে ইতিহাসের পাতায় মুশফিক। ইতিহাসের পাতায় বাংলাদেশ।

টার্গেট ২১৫ রানের। এর আগে টি-টোয়েন্টিতে কখনোই দুইশ তুলতে না পারা বাংলাদেশের জন্য এক কথায় অসম্ভব। কিন্তু সেই অসম্ভবকেই সম্ভব করার পন নিয়ে ব্যাটিংয়ে টাইগাররা। যার শুরুটা তামিম-লিটনের হাত ধরে। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ৭৪। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ। সর্বোচ্চ টি-টোয়েন্টির টাইগারদের ওপেনিং জুটিতে।৫ ছক্কায় ১৯ বলে ৪৩ লিটনের। তামিমের ব্যাট থেকে এসেছে ৪৭।

ইনিংসের মাঝের সময়টাই সবচেয়ে কঠিন বাংলাদেশের জন্য সেখানেও কি আশ্চর্য পরিবর্তন। মুশফিক-সৌম্যর ৫১ রানের জুটি। ২২ বলে সৌম্যর ২৪ হয়তো দৃষ্টি সুখকর নয়- তবে ভিষন কার্যকরী। আরো বেশি কার্যকরী মুশফিক-মাহমুদুল্লার ১৭ বলে ৪২ রানের জুটি। মুশফিক এক কথায় অনন্য। ব্যাঙ্গালুরুতে জয়ের বন্দরে গিয়েও নোঙর করতে পারেননি ক্ষনিকের ভুলে।

এবার আর সে ভুল করেননি। মাত্র ৩৫ বলে টি-টোয়েন্টির ক্যারিয়ার সেরা অপরাজিত ৭২। শ্রীলংকার স্বপ্ন ধুলোয় মিশিয়েই মাঠ ছাড়লেন মুশি। অথচ টস জিতে বোলিংয়ে নেমে শুরুটা সুখকর হয়নি টাইগারদের। শ্রীলংকার উদ্বোধনী জুটি ৫৬ রানের। কুশল মেন্ডিস পেয়েছেন নিজের তৃতীয় অর্ধশতক।

বাংলাদেশের পেসারদের নির্ঘুম রাত উপহার দেয়ার উপক্রম করেছিলেন লংকান ব্যাটসম্যানরা। তিন ওভারে ৪০ রান দিয়ে এক উইকেট নিয়ে সবচেয়ে খরুচে বোলার তাসকিন। মুস্তাফিজের তিন উইকেট আর অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহর দুই উইকেটের পরও লংকানদের স্কোর ২১৪। শেষ পর্যন্ত এই রানও টপকে গেছে বাংলাদেশ। শ্রীলংকার মাটিতে রান তাড়া করে সবচেয়ে বড় জয়। টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে যা চতুর্থ সেরা।

You may also like

সিনহার দুর্নীতির তদন্ত প্রশ্নে বিব্রত দুদক চেয়ারম্যান

দুর্ণীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, সুনির্দিষ্ট