বিশ্বকাপে আজ মুখোমুখি ইংল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়া

রাশিয়া বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালের জন্য প্রস্তুত মস্কোর লুকঝিনি স্টেডিয়ামের মঞ্চ। যেখানে আজ রাতে ফাইনালে খেলার স্বপ্ন নিয়ে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়া। অসাধারন এক দল নিয়ে ১৯৬৬ সালের পর বিশ্বকাপ জয়ের প্রত্যাশা ইংলিশদের। সে লক্ষ্য পূরনে ক্রোয়েটদের বিপক্ষে জিততে আত্নবিশ্বাসী থ্রি-লায়ন্সরা।

অন্যদিকে নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে সেরা সাফল্য ছোঁয়ার সামনে দাড়িয়ে দৃঢ় প্রত্যয়ী ক্রোয়েশিয়া। বিশ্বকাপ ফুটবল ইংল্যান্ডের জন্য বড় হতাশার নাম। ফুটবলের অফিসিয়াল জন্মদাতা হিসেবে দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থে মাত্র একবারই ফাইনালে খেলেছে থ্রী লায়নসরা।

শিরোপাও জিতেছে ঐ একবারই। হৃদয়ে অনেক রক্তক্ষরন নিয়ে ১৯৯০ সালের পর আবারো সেমিফাইনালে ইংল্যান্ড। প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ইংলিশ লিগের সেরা ২৩ জন ফুটবলার নিয়েই বিশ্বকাপ স্কোয়াড সাজিয়েছেন কোচ গেরেথ সাউথগেট। সেরা একাদশের সাথে শক্তিশালী রির্জাভ বেঞ্চ। এর সুফলও দল পাচ্ছে বিশ্বকাপে।

অধিনায়ক হ্যারি কেন ৬ গোল করে, গোল্ডেন বুটের বড় দাবীদার। তার সাথে আক্রমনে রাহিম স্টালিং,মধ্যমাঠে ডেন আলী, জেসে লিনগার্ড, জর্ডান হেন্ডারসন, রক্ষনভাগে কেইল ওয়াকার, জন স্টোনসদের নিয়ে অত্যান্ত ব্যালেন্স ও গতি সম্পন্ন দল থ্রি-লায়ন্সদের।

গ্রুপ পর্বে বেলজিয়ামের কাছে হারলেও; ভালো খেলেই শেষ চারের লড়াইয়ের মুখোমুখি এখন তারা। মধ্যমাঠ নিভোর্র ৩-৫-২ ফরমেশনে দলকে খেলানোর পরিকল্পনা সাউথগেটের।
ইংল্যান্ড ফুটবল দলের সামন্যে সোনালী দিনের হাতচ্ছানী। সেজন্য আর একটি ম্যাচ, পেরোতে হবে ক্রোয়েশিয়ার বাধা।

ইংল্যান্ডের মত ক্রোয়েশিয়াও ছুতে চায় স্বপ্নের নতুন দিগন্ত। ক্রোয়েশিয়ার ফুটবল ইতিহাসে সেরা দল এটিই। বর্তমান দলটিকে ৯৮ সালে ফ্রান্স বিশ্বকাপে আলোড়ন তোলা ডেভর সুকারদের দলের চেয়েও শক্তিশালি হিসেবে চিহ্নিত করেছেন বিশ্লেষকরা। দলের প্রধান শক্তি মধ্যমাঠ।

আর সেখানে আছেন মিডফিল্ড জেনারেল অধিনায়ক লুকা মরডিচ। ৫ ম্যাচের তিনটিতেই ম্যাচ সেরা, এই আসরে দূদান্ত খেলছেন এ্ ই রিয়াল মাদ্রিদ তারকা। তার সাথে পেনাল্টি কিলার মোনাকোর গোলকিপার ডানিয়েল সাবেসিক, ইভান রাকিটিচ, মারিয়ো মানজুকিচ, মাতেও কোভাচিচ, ইভান পরসিচ, ডেজেন লোভরেনদের নিয়ে দারুন এক দল নিয়েই রাশিয়া এসেছে ক্রোয়েশিয়া।

তবে সেমিফাইনালে বড় সমস্যা হতে পারে ইনজুরি। কয়েকজন নিয়মিত খেলোয়াড়ই ইনজুরির সাথে লড়ছেন। যদিও তাদের নিয়েই সেরা একাদশ সাজানোর পরিকল্পনা ক্রোয়েট কোচের। কিছুটা রক্ষনত্বক এবং কাউন্টার অ্যাটাক নিভোর ৪-২-৩-১ ফরম্যাশনে খেলে ইংরেজদের আটকানোর পরিকল্পনা ক্রোয়েশিয়ান কোচের।

বিশ্বকাপের সোনার ট্রফি ছোয়ার এত কাছে এসে ফাইনালের আগে বিদায় নিতে চায় না কোন দলই। যদিও এই ম্যাচের তিনটি প্রেডিকশানেই বলা হচ্ছে ইংল্যান্ড জিতবে ২-১ গোলে। দেখাই যাক বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন পূরনের পথে কে পেরোতে পারে শেষ চারের বাধা।

You may also like

সিরিয়ায় রুশ বিমান ধ্বংসের জন্য ইসরায়েল দায়ী: রাশিয়া

সিরিয়ার বন্দর নগরী লাতাকিয়ার আকাশে ১৫ আরোহীসহ রাশিয়ার