ঘরের মাঠে দর্শক বাংলাদেশ !

আশার বেলুন চুপসে গেলো গ্রুপ পর্বেই। ঘরের মাঠের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে দর্শক বাংলাদেশ। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন আর খেলোয়াড়দের গাল ভরা বুলি থেমে গেছে নেপালের উজ্জীবিত ফুটবলে। বাংলাদেশকে ২-০ গোলে হারিয়ে এ-গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে উঠলো নেপাল। অন্য ম্যাচে ভুটানকে ৩-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে শেষ চারে উঠলো পাকিস্তান।

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে হ্যান কারেঙ্গা ত্যান কারেঙ্গা। বাংলাদেশ ফাইনালে খেলবেই। খেলোয়াড় কোচ কর্মকর্তারা শুনিয়েছেন আশার বাণী। বাংলাদেশ ফুটবলের সুদিন ফিরলো বলে। ভাবখানা এমন সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রফিটা তৈরীই হয়েছে বাংলাদেশের জন্য। বাকিরা এসেছে শুধু অংশগ্রহণ করতে। তাদের আশার বাণী কতটা অন্তসারশূন্য তা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে নেপাল।

পয়েন্ট টেবিল বলছে বাংলাদেশ, নেপাল ও পাকিস্তান তিন দলেরই পয়েন্ট ছয়। বাংলাদেশ বাদ পড়েছে গোল গড়ের হিসেবে। আসলে সবটাই শুভঙ্করের ফাঁকি। প্রথম ম্যাচে দূর্বল ভুটানের বিপক্ষে জয়, পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় ভাগ্যের জোরে। ফিটফাট বাংলাদেশ দলের ভেতরটায় আসলে সদরঘাটের বিশৃঙ্খলা। যা ফুটে উঠেছে নেপালের বিপক্ষে ম্যাচে।

গ্যালারী উপচে পড়া দর্শক সমর্থনও জাগিয়ে তুলতে পারেনি বাংলাদেশের ফুটবলারদের। ঝিমিয়ে পড়া দলের প্রতীকি ছবি গোলরক্ষক সোহেল। কোচের প্রথম পছন্দে ছিলেন না। দলে জায়গা পেয়েছেন ক্লাব রাজনীতি আর কর্মকর্তাদের গুড বুকে থাকার কারণে। তার প্রতিদানও দিয়েছেন সোহেল। প্রথম গোলটি এসেছে তার হাত ফসকে। নেপালের বিমল মগারের ফ্রি কিক বলটি কিভাবে সোহেলের হাত ফস্কে গেছে সেটা তিনি নিজেও বলতে পারবেন কিনা সন্দেহ।

ঘরোয়া ফুটবলে মামুনুল-ওয়ালি ফয়সালদের দর ওঠে অর্ধ কোটি টাকা। কেন এতো দাম তাদের মাঠের খেলা দেখে বোঝার উপায় নেই। অহেতুক মাঠে দৌড়াদৌড়ি, ভুল পাস আর লক্ষ্যহীন শটেই তাদের ৯০ মিনিট পার। দুই ম্যাচে ডিফেন্ডার তপু বর্মন গোল করে দলকে জয় এনে দিয়েছেন। আজ তার পায়ে গোল নেই। আর দলে যে সুফিল- সাখাওয়াৎ রনি নামের স্ট্রাইকাররা আছেন সেটা বোঝা যায়নি একটি বারও। বরং ম্যাচ শেষ হওয়ার ঠিক আগে নবযুগ শ্রেষ্ঠর গোলে কলিতেই ঝড়ে গেছে বাংলাদেশের নতুন যুগ সৃষ্টির স্বপ্ন।

টুর্নামেন্ট থেকে বিদায়ের পরও লজ্জার মাথা খেয়ে কোচকে গাইতে হচ্ছে ভবিষ্যতে ভালো করার গান। দিনের প্রথম ম্যাচে ভুটানকে ৩-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনাল আগেই নিশ্চিত করে রেখেছিলো পাকিস্তান।আসলে পাকিস্তানের বড় জয়েই বেজে গিয়েছিলো বাংলাদেশের বিদায় ঘন্টা। যার পূর্ণতা পেয়েছে নেপালের হাত ধরে।

মানিক মাহমুদ
বাংলাভিশন, ঢাকা।

You may also like

ডাকাত সন্দেহে পুলিশদের গণপিটুনি, গ্রেপ্তার আতংকে পুরুষ শূণ্য গ্রাম

ডাকাত মনে করে পুলিশ পেটানোর জেরে গ্রেপ্তার আতংকে