ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

আসরের অন্যতম ফেভারিট ভারতকে হতাশায় ডুবিয়ে, রোমাঞ্চকর নাটকীয় জয়ে টানা দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছে নিউজিল্যান্ড। উইকেটের সিমিং কন্ডিশনকে কাজে লাগিয়ে দারুন বোলিং ও ফিল্ডিং নৈপুন্যে; সেমিফাইনালে ১৮ রানে জয় পেয়েছে ব্ল্যাক-ক্যাপসরা। ওল্ডট্রাফোর্ডে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ৮ উইকেটে ২৩৯ রান করে নিউজিল্যান্ড। জবাবে রবিন্দ্র জাদেজার শ্বাসরূদ্ধকর ব্যাটিং নৈপূণ্য এবং মোহেন্দ্র সিং ধোনির দারুন সার্পোটে রিজার্ভডে’তে ম্যাচ জমিয়ে তুলেও, শেষ রক্ষা হয়নি; ২২১ রানে গুটিয়ে যায় কোহলীর দল।

ব্যাটে-বলে দূর্দান্ত লড়াই, দারুন উত্তেজনা ছড়িয়েই শেষ হয়েছে প্রথম সেমিফাইনাল। সেখানে নিউজিল্যান্ডের রোমাঞ্চকর জয়, ভারতের পরাজয় হলেও; প্রকৃত অর্থেই জিতেছে ক্রিকেট। আগের দিনের বৃষ্টিও পরেনি ম্যাচের আকর্ষন কেড়ে নিতে। যদিও ম্যাচে কিউইদের জয়ে বৃষ্টিই রেখেছে বড় ভুমিকা। অত্যান্ত সিমিং কন্ডিশনের সুবিধা পুরোটাই আদায় করে নিয়েছে নিউজিল্যান্ডের পেসাররা।

অথচ নিউজিল্যান্ড সেমিফাইনালে ওঠায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক সমালোচনা তাদের নিয়ে। শেষ চারের জৌলুসটাই কমে গেলো; দুরন্ত ফর্মের কোহলীর সামনে উড়ে যাবে উইলিয়ামসনরা; এমন আরো অনেক কথা ক্রিকেট বিশ্লেষক, গনমাধ্যম সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কিন্তু ওল্ড ট্রাফোর্ডে রচিত হলো উল্টো ইতিহাস। ভারতকে হতাশায় ডুবিয়ে টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপ ফাইনালে ব্লাকক্যাপসরা।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে প্রথম সেমিফাইনালের দিন বৃষ্টি হবে। এমন পুর্বাভাসও সত্যি হয়। ম্যাচও গড়ায় রিজার্ভ ডে’তে। সেখানে রোহিত শর্মা, কোহলীদের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইনাআপের সামনে কিউইদের টার্গেট মাত্র ২৪০ রানের। কিন্তু আগের রাতের বৃষ্টিতে অত্যান্ত সিমিং কন্ডিশনের কারনে এই সহজ টার্গেটই হয়ে দাড়ায় কঠিন। যার নেতিবাচক ফল হাতে নাতেই পেয়েছে ভারত। দলীয় ৪ রানে বিদায় এবারের বিশ্বকাপ পাঁচ সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়া হিটম্যান রোহিত শর্মা।

ম্যাট হেনরি আর ট্রেন্ট বোল্টের পেস আর সুইংয়ে অসহায় আত্মসমর্পন অধিনায়ক কোহলী আর লোকেশ রাহুলের। স্কোর বোর্ডে ৫ রানে তিন উইকেট নেই ভারতের। দু:স্বপ্নের ম্যাচে দলীয় ২৪ রানে সাজঘরে ফেরেন দিনেশ কার্তিকও। বিপর্যয় কাটিয়ে ভারতের ম্যাচে ফেরার চেস্টায় ঋষভ পন্ত ও হার্দিক পান্ডিয়া। কিন্তু রানের পেছনে চুটতে গিয়েদু জনেই ফিরেছেন ৩২ করে। এতে ৯২ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে কঠিন চাপে ভারত।

তবে এরপর রবিন্দ্র জাদেজাকে নিয়ে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন অভিজ্ঞ ধোনি। সময়ের সাথে সাথে উইকেট কিছুটা ব্যাটিং সহায়ক হয়ে উঠলে; ব্যাট হাতে পাল্টা আক্রমন জাদেজার। তাকে দারুন সাপোর্ট দেন ধোনি। সপ্তম উইকেটে এই জুটির ১১৬ রানে দারুনভাবে জমে উঠে ম্যাচ। তবে ৫৯ বলে ৭৭ রান করে ট্রেন্ট বোল্টকে বিগ হিট নিতে গিয়ে জাদেজা ফিরে গেলে ও মিস্টার ফিনিশার ধোনি ৪৯ রানে মার্টিন গাপ্টিলের নিখুত থ্রোতে রান আউট হলে; জয়ের রাস্তা থেকে ছিটকে পড়ে ভারত।

এরআগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে গাপ্টিলের উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে নিউজিল্যান্ড। তবে নিকোলসের ২৮ রানের পর অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের ৬৭ ও টেইলরের ৭৪ রানে; রিজার্ভ ডে’তে ৮ উইকেটে ২৩৯ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে নিউজিল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত দারুন বোলিংয়ে নাটকিয় জয় ছিনিয়ে নিয়ে টানা দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপ ফাইনালে নিউজিল্যান্ড।

You may also like

আজও আন্দোলনে উত্তাল বুয়েট

আবরার ফাহাদ হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে বুয়েটে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন