ক্রিকেটারদের ডাকা ধর্মঘট পূর্বপরিকল্পিত চক্রান্ত, কিছুই করার নেই: বিসিবি সভাপতি

ক্রিকেটারদের ১১ দফা দাবির কোন সমাধানে আসেনি বিসিবি। উল্টো এই দাবির পেছনে ষড়যন্ত্রের গন্ধ খুঁজে পাচ্ছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বোর্ড পরিচালনা পর্ষদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি বলেন, ক্রিকেটারদের ডাকা ধর্মঘট নিয়ে কিছুই করার নেই বিসিবির। খেলোয়াড়রা যে দাবি তুলেছেন, তা এরই মধ্যে কার্যকর হয়েছে অথবা প্রক্রিয়াধীন। জাতীয় দলের প্রস্তুতি ক্যাম্প কিংবা জাতীয় লিগ কারা কারা বয়কট করেন, তা দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান বোর্ড প্রধান।

১১ দফা দাবিতে সোমবার সব ধরণের ক্রিকেটীয় কার্যক্রম বয়কটের ঘোষণা দেন ক্রিকেটাররা। এরই প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বিসিবি সভাপতি সহ অধিকাংশ পরিচালক হাজির হন মিরপুর স্টেডিয়ামে বিসিবির কার্যালয়ে। বোর্ড পরিচালনা পর্ষদের সঙ্গে বৈঠক হয়ে সেখানে। সবার আশা ছিলো সমস্যার সমাধান করে ক্রিকেটের অচলায়তন ভাঙবেন বোর্ড সভাপতি। কিন্তু সংবাদ সম্মেলনে এসে উল্টো চিত্র। বিসিবিকে কিছু না জানিয়ে মিডিয়া কনফারেন্স করে দাবি জানানোয় হার্ড লাইনে গেলো বিসিবি। তার মতে, এমন কোন দাবি নেই যা বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করলে সমাধান হতো না। এর জন্য আন্দোলনে যাওয়ার প্রয়োজন ছিলো না।

বোর্ড সভাপতির দাবি তার বোর্ডকে বেকায়দায় ফেলতে ষড়যন্ত্র চলছে। সবার না হলেও দুই একজন ক্রিকেটারের সম্পৃক্ততা দেখতে পাচ্ছেন এতে। কারা এর পেছনে আছে তা খুঁজে বের করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান। ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত আক্রমণ করতেও পিছপা হননি পাপন। সামনে ভারত সফর। যার প্রস্তুতি শুরু হবে ২৫ অক্টোবর। তার আগে শুরু হবে জাতীয় লিগের তৃতীয় রাউন্ড। সমস্যার সমাধান না করে বরং ক্রিকেটারদের প্রচ্ছন্ন হুমকি দিয়ে রাখলেন বিসিবি বস। ক্রিকেটার আর বোর্ডের মুখোমুখি অবস্থানে সমস্যার সমাধানের চাইতে নতুন সঙ্কটের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ক্রিকেট, বলে আশংকা ক্রিকেট বোদ্ধাদের।

 

You may also like

১৬ নভেম্বর, শনিবার ২০১৯

সকাল ৮:৩০ : দিন প্রতিদিন সকাল ৯:০৫ :