প্রথম ইনিংসে বড় স্কোরের জন্য লড়ছে জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে একমাত্র টেস্টে চলছে দ্বিতীয় দিনের খেলা। আগের দিনের ৬ উইকেটে ২২৮ রানে নিয়ে, দ্বিতীয় দিনে লড়ছে সফরকারী দল। শেষ খবর পর্যন্ত ৯ উইকেটে ২৫২ করেছে জিম্বাবুয়ে। পেসার আবু জায়েদ রাহি দ্বিতীয় দিনে দুই উইকেট তুলে নিয়ে সফলতা দেখান। প্রথম দিনে ৬ উইকেটে ২২৮ রান নিয়ে, দ্বিতীয় দিনে ব্যাটিংয়ে নেমে আর … রান যোগ করেই অলআউট হয়েছে জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয় দিনে প্রথম সেশনে বাংলাদেশের বোলাররা নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে, জিম্বাবুয়েকে বড় ইনিংস গড়তে দেয়নি। জিম্বাবুয়ে তাদের শেষ ৫ উইকেট হারিয়েছে …. রানে। অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন ১০৭ এবং ওপেনার প্রিন্স মাসভাউর ৬৪ করে সফরকারী দলকে গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট দেন। এরপর শেষ দিকে উইকেট কিপার রেজিস চাকাভা … রান করেছেন। এছাড়া দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার ব্রেন্ডন টেলর ১০ ও সেকেন্দার রাজা আউট হয়েছেন ১৮ করে। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে স্পিনার নাইম হামান প্রথম দিনই নেন ৪ উইকেট। তবে দ্বিতীয় দিনে

প্রথম দিনে মিরপুরের উইকেটে ঘাস থাকলেও, ফ্লাট উইকেটে টস জিতে ব্যাটিং বেছে নেয় জিম্বাবুয়ে। দলীয় ৭ রানে প্রথম উইকেট হারালেও, দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন এবং অপর ওপেনার প্রিন্স মাসভাউর দৃঢ়তায় বড় ইনিংসের সম্ভবনা জাগায় সফরকারীরা। এই জুটি ১১১ রান যোগ করার পর, স্পিনার নাইম হাসান গুরুত্বপূর্ণ ব্রেক থ্রু এনে দেন মাসভাউর’কে ৬৪ রানে ফিরিয়ে দিয়ে। এরপর নাইম প্রথম দিনেই আরো তিন উইকেট তুলে নেন। তার শিকার হয়ে ব্রেন্ডন টেলর ১০ ও সেকেন্দার রাজা ১৮ করে আউট হন। তবে নাইমের সেরা সফলতা ছিলো জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক আরভিনকে বিদায় করা। সফরকারীদের ইনিংসকে প্রায় একাই টেনে নেয়া, আরভিন সেঞ্চুরি করে যখন আরো বড় ইনিংস খেলার জন্য মানিষিকভাবে প্রস্তুত হচ্ছিলেন, তখনই নাইমের চাতুর্যতার কাছে পরাস্থ হন। শেষ বিকেলে তার বোলিংয়েই স্বস্তি ফিরে আনে স্বাগতিক শিবিরে। এছাড়া পেসার আবু জায়েদ রাহি প্রথম দিনে নেন দুই উইকেট। তবে ফাস্ট বোলার এবাদত হোসেন ভালো বোলিং করলেও; দূর্ভাগ্য প্রথম দিনে উইকেট শূণ্য থাকতে হয়েছে তাকে।

+

You may also like

জেলায় জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনের সংখ্যা বাড়ছে

নোয়াখালীতে সর্দি-কাশি, জ্বর আক্রান্ত হয়ে এক যুবক মারা