প্রথমবারের মতো একসাথে তিনটি পৃথিবী সদৃশ গ্রহ আবিষ্কারের চমকপ্রদ তথ্য দিয়েছে- নাসা

প্রথমবারের মতো একসাথে তিনটি পৃথিবী সদৃশ গ্রহ আবিষ্কারের চমকপ্রদ তথ্য দিয়েছে- নাসা

প্রথমবারের মতো একসাথে তিনটি পৃথিবী সদৃশ গ্রহ আবিষ্কারের চমকপ্রদ তথ্য দিয়ে বিশ্ব জুড়ে সাড়া ফেলে দিয়েছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা-নাসা। এতে, ভিনগ্রহে জীবনের অস্তিত্বের সন্ধানে উচ্চাভিলাসী প্রকল্পে আরো একধাপ এগিয়ে গেলো সংস্থাটি।

পৃথিবীর বাইরে প্রাণের স্পন্দনের খোঁজে রহস্যময় মহাবিশ্ব চষে বেড়াচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। উন্নত প্রযুক্তির সহায়তায় একাধিক আশা জাগানিয়া সংবাদও দিয়েছেন তাঁরা।

এবারই প্রথম পৃথিবী সদৃশ একাধিক গ্রহসহ গোটা একটা সৌর জগতের খোঁজ পেয়েছে মহাকাশ গবেষণা সংস্থা-নাসা। নাম দেয়া হয়েছে ট্রাপিস্ট-ওয়ান। আয়তনে, বৃহস্পতির সমান। একে কেন্দ্র ঘুর্ণায়মান সাতটি গ্রহের তিনটিতে পৃথিবীর মতো আবহাওয়া বিরাজ করছে বলে মত বিজ্ঞানীদের। তাই, সেখানে পানি ও প্রাণের অস্তিত্ব থাকার সম্ভাবনা খুবই জোরালো।

“এর মাধ্যমে প্রমাণ হলো, পৃথিবীর মতো গ্রহের অস্তিত্ব পাওয়ার প্রশ্ন এখন আর হয়তোর মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। বরং কবে পাওয়া যাবে সেটাই দেখার বিষয়।”

গ্রহগুলোর আয়তন; কোনটি পৃথিবীর থেকে বড় আবার কোনটি ছোট। কক্ষপথে ঘুর্ণায়মান সবচে’ দূরের শীতল গ্রহে বরফের অস্তিত্ব পাওয়া যাবে বলেও মনে করছেন গবেষকরা। চিলিতে অবস্থিত উচ্চক্ষমতার টেলিস্কোপ ট্রাপিস্ট ও মহাশূন্যে ভাসমান একাধিক টেলিস্কোপের ১৪ বছরের অনুসন্ধানের ফসল নয়া এই আবিষ্কার। মহাকাশে ভাসমান হাবল টেলিস্কোপে জেমস ওয়ব স্পেস টেলিস্কোপ যুক্ত হলে গ্রহগুলোর ভূমির গঠন ও বায়ুমণ্ডলে জীবন ধারণের উপযোগী রাসায়নিকের উপস্থিতির বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

তবে, পৃথিবী থেকে ৪০ আলোকবর্ষ বা ৭৬ ট্রিলিয়ন কিলোমিটার দূর অবস্থিত ওই গ্রহে মানুষের পক্ষে সহসাই পৌঁছা সম্ভব হবে না। কারণ, প্রচলিত রকেট ব্যবহারে সেখানে পৌছাতে সময় লাগবে প্রায় সাত লাখ বছর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও

দিনাজপুরে জেএমবির দুই সদস্য গ্রেফতার

দিনাজপুরের রানীগঞ্জ থেকে জেএমবির সারওয়ার-তামিম গ্রুপের সক্রিয় দুই