সাইবার হামলার সম্ভাব্য ক্ষতি ১২ হাজার কোটি ডলার!

বিশ্বব্যাপী সাইবার আক্রমণের পরিমাণ এখন এতোটাই বেড়েছে যে এটি ৫৩ বিলিয়ন ডলারের অর্থনৈতিক ক্ষতি ডেকে আনতে পারে। আর সর্বসাকুল্যে এই ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াতে পারে ১২ হাজার ১০০ কোটি ডলারের সমপরিমাণ।এই ক্ষতি ২০১২ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে হয়ে যাওয়া সুপারস্ট্রম ‘স্যান্ডির’ মতো বিপর্যয়কর প্রাকৃতিক দুর্যোগের সমতুল্য বলে দাবি করেছে যুক্তরাজ্যের অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান লয়েডস অব লন্ডন।
লয়েডস অব লন্ডন সোমবার ওই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। রিপোর্টটির সহ-লেখক প্রতিষ্ঠান রিস্ক মডেলিং ফার্ম ‘সায়েন্স’ সম্ভাব্য এসব অর্থনৈতিক ক্ষতির দিকটি ব্যাখ্যা করার চেষ্টাও করেছে। যেখানে ব্যবসা ক্ষেত্রে হ্যাকিং এবং বিশ্বব্যাপী কম্পিউটার সিস্টেমে সাইবার হামলায় ক্ষতির কথা বলা হয়েছে।এমনকি এই ক্ষতি থেকে বাঁচতে ও সম্ভাব্য সাইবার হামলা সম্পর্কে অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে সতর্ক করতে কাজ করছে বীমা কোম্পানিগুলো। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানগুলো যাতে একটি সাইবার নিরাপত্তা বীমা করেন সেজন্য বীমা কোম্পানিগুলো হিমশিম খাচ্ছে। এক্ষেত্রে অবশ্য তথ্যের অপর্যাপ্ততাও একটি বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে বীমা কোম্পানিগুলোর।

কারণ হিসেবে বীমা কোম্পানিগুলো বলছে, সাইবার পরিসর একটি ভিন্ন জগত। ফলে সেখানকার ডেটা সংগ্রহ করতে গেলে একটু ভিন্নভাবে জানতে এবং বুঝতে হয় বলে লয়েডস অব লন্ডনের প্রধান নির্বাহী ইনগা বিয়েল জানিয়েছেন।সায়েন্স জানাচ্ছে, গত মে মাসে শতাধিক দেশে যে ওয়ানাক্রাই নামক র‍্যানসমওয়্যার আক্রমণ হয়েছিল সেটির ফলে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক ক্ষতির পরিমাণ ছিল ৮০০ কোটি ডলার।এই ক্ষতির মধ্যে অবশ্য আক্রান্ত কম্পিউটারের মেরামতের ব্যয় ধরা হয়েছে।এর পর জুন মাসে আরেকটি বড় ধরনের র‍্যানসমওয়্যার হামলা ‘নটপেতায়া’য় আর্থিক ক্ষতি হয়েছে ৮৫০ মিলিয়ন ডলার।

তবে রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে, এমন সাইবার হামলায় ক্ষতির পরিমাণ সর্বনিম্ন ৪ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার থেকে ৫৩ বিলিয়ন ডলার হতে পারে। তবেব এর যদি পুঙ্খানুপুঙ্খ হিসাব করা হয় তাবে সার্বিক বিবেচনায় এই আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ গিয়ে ঠেকবে ১২১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে।তবে এই সম্ভাব্য ক্ষতির পরিমাণে হতে পারে গড়ে ৯ দশমিক ৭ থেকে ২৮ দশমিক ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।বর্তমানে সাইবার ইনস্যুরেন্স মার্কেটে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ শেয়ার রয়েছে লয়েডস অব লন্ডনের।

You may also like

আলিবাবার জ্যাক মা সম্পর্কে ৯টি মজার তথ্য

চীনা ইকমার্স জায়ান্ট আলিবাবার সহ প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা।